«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

অবশেষে বিয়ে করলেন গোদাগাড়ী উপজেলার সাবেক যুবলীগ নেতা শফিকুল সরকার

মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১২:১৭ অপরাহ্ণ | 1166 বার

অবশেষে বিয়ে করলেন গোদাগাড়ী উপজেলার সাবেক যুবলীগ নেতা শফিকুল সরকার
গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানে নাতি-নাতনীদের সাথে শফিকুল ইসলাম সরকার

মহানন্দা নিউজ-



 বহু প্রতীক্ষার,জল্পনা কল্পনার পর এবার অবিবাহিত নামের অবসান ঘটেছে গোদাগাড়ী উপজেলার ৪ নং রিশিকুল ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের ঐতিহ্যবাহী পরিবার মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান,গোদাগাড়ী উপজেলার সাবেক যুবলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম সরকারের।পুরোদস্তুর রাজনীতির সাথে জড়িত তিনি।সারাজীবন রাজনৈতীক দলের সাথে যুক্ত থেকে দলের পক্ষে কাজ করে গেছেন নিরলসভাবে।প্রায় ৪৮ বছর বয়সে এসে বিবাহের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। আর এতেই গোদাগাড়ীবাসীর এবং শফিকুল সরকারের গ্রামের বাড়ি সৈয়দপুরে নেমে আসে খুশির জোয়ার,আনন্দের ছড়াছড়ি মাখামাখি।

এলাকা ঘুরে দেখা যায়,সাবেক যুবলীগ সভাপতি শফিকুল সরকারের  বিয়ে উপলক্ষ্যে গ্রামবাসীর মধ্যে বইছে আনন্দের জোয়ার।খুশির আমেজ।প্রস্তুত করা হচ্ছে বিয়ে বাড়ির প্রধান ফটকের আলোকসজ্জা,গায়ে হলুদের প্যান্ডেল,বিয়েতে আগত অতিথিদের বসা এবং খাওয়ার জন্য বিশেষ প্যান্ডেল। রুপকথার গল্পে রাজকুমারের বিয়ে উপলক্ষ্যে যেসব আয়োজন করার কথা উল্লেখ আছে সৈয়দপুরের সরকার পরিবারের রাজকুমারের বিয়ে উপলক্ষ্যে সেসব আয়োজন করতে কৃপণতা করেননি সরকার পরিবার এবং গ্রামবাসীসহ সাবেক এই যুবলীগ নেতার ভক্তঅনুরাগীরা।সৈয়দপুর গ্রামের ছরাজউদ্দিন,রুহুল,চেরু,মোস্তফা,সাইফুল, জানান,আমরা অনেক চেস্টা করেছি শফিকুল সরকারের বিয়ে দেওয়ার জন্য কিন্তু তিনি বারংবার ই অমত পোষণ করেছেন।কিন্তু আল্লাহর অশেষ রহমতে দীর্ঘ ৪৮ বছর বয়সে এবার তিনি বিয়ের জন্য সম্মতি দিয়েছেন।বিয়ের দাওয়াত উপলক্ষ্যে সকল প্রকার প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা সম্পন্নের চেস্টা চলছে।গতকাল সোমবার ১৭ফেব্রুয়ারি শুভ বিবাহ সম্পন্ন হয়েছে।

এদিকে সরকার পরিবারের বিশ্বাস্ত সূত্রে জানা যায়,সাবেক যুবলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম সরকারের শুভ বিবাহ উপলক্ষ্যে প্রায় ১৫’শ জন অতিথিকে আপ্যায়নের জন্য নিমন্ত্রন করা হয়েছে,তাছাড়াও পুরো গ্রামবাসী বিয়ের দাওয়াতে অংশ নিবেন।গোদাগাড়ী উপজেলার যুবরাজ খ্যাত শফিকুল ইসলাম সরকার জানিয়েছেন, বিয়েটা পারিবারিক সম্মতিতে হয়েছে,প্রায় সবাইকেই নিমন্ত্রন করার চেস্টা করা হয়েছে।ব্যাস্ততার কারনে হয়তো অনেককেই বিয়ের বিষয়টি জানাতে পারিনি তাই আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি।বিবাহিত জীবনে যেন সুখী হতে পারে এজন্য সবার দোয়া কামনা করেন গোদাগাড়ী উপজেলার সাবেক যুবলীগের এই নেতা।



FB_IMG_15820047132585389-1



যুবসমাজের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করায় শফিকুল ইসলাম সরকারকে ২০০৩ সালে গোদাগাড়ী উপজেলার যুবলীগের সভাপতির দায়িত্ব প্রদান করেন কেন্দ্রীয় কমিটি। ২০০৩-২০১৪ সাল পর্যন্ত টানা ১১ বছর দক্ষতার সহিত উপজেলা যুবলীগের দায়িত্ব পালন করেন যুবলীগের এই ত্যাগী নেতা। সফিকুল ইসলাম সরকারের বাবা মৃত গাফফার সরকার বীর মুক্তিযোদ্ধাছিলেন।১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামি ডাকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।এবং দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর ১৯৭১ এর ১৬ ই ডিসেম্বর স্বাধীনতার বিজয় ছিনিয়ে আনেন।আর এই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ই সন্তান সফিকুল ইসলাম সরকার।শফিকুল ইসলাম সরকার _02-18-04.46.12

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

অযথা ঘোরাঘুরি করায় পুঠিয়াতে দুজন’কে জরিমানা

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল