«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দিলেন জাবির আন্দোলনকারীরা

শুক্রবার, ০৪ অক্টোবর ২০১৯ | ৫:২৫ অপরাহ্ণ | 52 বার

রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দিলেন জাবির আন্দোলনকারীরা
জাবির আন্দোলনকারীরা। ফাইল ফটো

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন

প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ এনে ভিসি

অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের পদত্যাগ দাবিতে

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনের মতো ধর্মঘট পালন

করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

এ দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরে এদিন সন্ধ্যায়

বিশ্ববিদ্যালয়টির চ্যান্সেলর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল

হামিদের কাছে চিঠি দিয়েছেন তারা। বিপরীতে এ

আন্দোলনকে ষড়যন্ত্র আখ্যা দিয়ে এর

বিপক্ষে বৃহস্পতিবার গণসংযোগ চালিয়েছেন

ভিসিপন্থী শিক্ষকরা।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টা থেকে বিকাল ৪টা

পর্যন্ত সর্বাত্মক ধর্মঘটের কারণে স্থগিত ছিল

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম।

প্রশাসনিক ভবনের ফটকগুলোতে তালাবদ্ধ থাকায়

ভিসিসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অফিসে ঢুকতে

পারেননি। বেশির ভাগ বিভাগে ক্লাস হয়নি (ভিসিপন্থী

কিছু শিক্ষক কয়েকটি ক্লাস নিয়েছেন)। বন্ধ ছিল

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ পরিবহন সেবা। তবে পূর্ব

নির্ধারিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ৮টার

দিকে প্রোভিসি (শিক্ষা)

অধ্যাপক নূরুল আলম এবং রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত)

রহিমা কানিজ নতুন প্রশাসনিক ভবনে নিজেদের

কার্যালয়ে ঢোকার চেষ্টা করেন। তবে

আন্দোলনকারীদের বাধার মুখে ফিরে যান তারা।

আন্দোলনের মুখপাত্র অধ্যাপক রায়হান রাইন

দুপুরে যুগান্তরকে বলেন, ‘আমরা আজ

(বৃহস্পতিবার) মহামান্য চ্যান্সেলরকে ফ্যাক্সের

মাধ্যমে বর্তমান ভিসিকে অপসারণের যৌক্তিকতা

জানাব। ভিসির দুর্নীতির বিষয়ে তাকে অবহিত করব।’

পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় আন্দোলনকারীদের

একজন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রফন্টের সাধারণ

সম্পাদক মুহাম্মদ দিদার যুগান্তরকে বলেন, ‘কিছুক্ষণ

আগে আমরা এ বিষয়ে রাষ্ট্রপতির দফতরে ফ্যাক্স

পাঠিয়েছি।’

ভিসিকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগের জন্য ১ অক্টোবর

পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে

জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে আন্দোলনকারীরা।

এরমধ্যে ভিসি পদত্যাগ না করায় বুধ ও বৃহস্পতিবার

সর্বাত্মক ধর্মঘটের কর্মসূচি দেন তারা। এর আগে

বেঁধে দেয়া সময়ের শেষ দিন মঙ্গলবার দুপুরে

নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ভিসি পদত্যাগ

করবেন না বলে জানিয়ে দেন। আন্দোলনকে

‘অযৌক্তিক’ দাবি করেন তিনি।

ভিসিপন্থী শিক্ষকরা শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের

আন্দোলনকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও

ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যা দিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ’

ব্যানারে বৃহস্পতিবার গণসংযোগ করেন। এ সময় তারা

ভিসির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে বিচলিত না হয়ে স্বাভাবিক

একাডেমিক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান।

৬ থেকে ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত ক্যাম্পাসে

পূজার ছুটি। আন্দোলনকারী ও ভিসিপন্থী শিক্ষকরা

জানিয়েছেন, বন্ধের দিনগুলোতে ক্যাম্পাসে

সব ধরনের কর্মসূচি স্থগিত রাখবেন তারা।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

বাগেরহাট  মোরেলগঞ্জ প্রেস ক্লাবের নির্বাচন সস্পন্ন  লিপন সভাপতি, মাসুম সম্পাদক

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল