«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

কারবালার প্রান্তরে নতুন হৃদয়বিদারক ঘটনা

বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৭:১৮ পূর্বাহ্ণ | 27 বার

কারবালার প্রান্তরে নতুন হৃদয়বিদারক ঘটনা
ছবি-সংগৃহীত

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দৌহিত্র হজরত

ইমাম হোসাইন (রা.) ও তার সঙ্গীদের শাহাদাত

বার্ষিকী উপলক্ষে ইরাকের কারবালায়

শোকানুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন ৩০ লাখ মানুষ।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশসহ ইরাকের বিভিন্ন অঞ্চল

থেকে এত মানুষের পদচারণায় ইমাম হোসাইনের

(রা.) মাজার এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়। কারবালা

পরিণত হয়েছিল শোক আর মাতমের শহরে। কিন্তু

এই শোকের অনুষ্ঠানেই রচিত হল আরেক

শোকের ইতিহাস। কারবালার প্রান্তরে ঘটল নতুন

হৃদয়বিদারক ঘটনা।

কারবালায় পবিত্র আশুরা অনুষ্ঠানে হুড়োহুড়িতে

পদদলিত হয়ে ৩১ জনের মৃত্যু ও শতাধিত মানুষ

আহত হওয়ার ঘটনায় এখন কারবালাসহ গোটা ইরাক

পরিণত হয়েছে শোকের শহরে।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, হাজার হাজার মানুষ তাজিয়া

মিছিল নিয়ে ইমাম হোসাইনের (রা.) মাজারের দিকে

যাওয়ার সময় একটি ওয়াকওয়ে ধসে পড়লে আতঙ্ক

তৈরি হয়। এ সময় ছুটোছুটি শুরু হলে পদদলনের

ঘটনা ঘটে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ১৭ জন নিহত

ও ৭৫ জন আহত হওয়ার কথা বলা হলেও বেসামরিক

সূত্রে ৩১ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছে বার্তা

সংস্থা রয়টার্স।

মানুষের প্রচণ্ড ভীড় ও ধাক্কাধাক্কির কারণে

হতাহতের সংখ্যা বেড়েছে বলে স্থানীয়

প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

আশুরার তাজিয়া মিছিলে বিগত কয়েক বছরের মধ্যে

এটাই সবচেয়ে প্রাণঘাতী পদদলনের হওয়ার ঘটনা।

এর আগে ২০০৫ সালে ইরাকের রাজধানী

বাগদাদে দজলা নদীর একটি সেতু ভেঙ্গে

কমপক্ষে ৯৬৫ মানুষ নিহত হয়েছিল।

যুদ্ধচলাকালীন ওই সময়ে আত্মঘাতী বোমা

হামলার গুজবে মানুষ হুড়োহুড়ি করলে এমন

প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছিল।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

সমুদ্র-দর্শন অথবা প্রেম- আমিনুল ইসলাম

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল