«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

রাজশাহীতে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে চাঁদাবাজি, ৩ জন কথিত সাংবাদিকে পুলিশে দিল জনতা

সোমবার, ০৮ জুলাই ২০১৯ | ১০:৩০ অপরাহ্ণ | 130 বার

রাজশাহীতে ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে চাঁদাবাজি, ৩ জন কথিত সাংবাদিকে পুলিশে দিল জনতা

ডেস্ক নিউজ : রাজশাহীতে ভ্রাম্যমান ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে চাঁদাবাজি করার সময় ঢাকা থেকে প্রকাশিত মাতৃজগত পত্রিকার স্টিকার সম্মেলিত মাইক্রোবাস ও জনতার হাতে আটক তিনজন কথিত সাংবাদিক

আব্দুল আলিম (বাগমারা প্রতিনিধি) : রাজশাহীর মহনগঞ্জে ভ্রাম্যমান ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে সুমি নামের একটি বেকারীতে চাঁদাবাজি করার সময় সাধারন জনতা ৩জন কথিত সাংবাদিককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। আজ সোমবার দুপুরে বাগমারা থানাধিন মহনগঞ্জ বাজারে সুমি বেকারীতে এ ঘটনা ঘটে। Screenshot_2019-07-08-22-25-39-1

এ সময় ঢাকা থেকে প্রকাশিত মাতৃজগত পত্রিকার স্টিকার সম্মেলিত স্টিকার লাগালো একটি সিলভার কালারের মাইক্রোবাসও জব্দ করে পুলিশ। বর্তমানে মাইক্রোবাসটি বাগমারা থানা হেফাজতে রয়েছে।

আটককৃতরা হলেন, রাজশাহী নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা থানাধিন এলাকার বাসিন্দা (৩৪), পিতা: মৃত: জয়নাল, সায়ের গাছা এলাকার মৃত ফজর শেখের ছেলে মোঃ আব্দুল জাব্বার, চন্দ্রিমা থানাধিন ছোট বনগ্রাম ১২ রাস্তার মোড় এলাকার মৃত সোহরাব উদ্দিনের ছেলে লিয়াকত হেসেন (৩৮)।

এছাড়া আটককৃত মাইক্রোবাস চালক নগরীর মতিহার থানাধিন বিনোদপুর এলাকার মজিবরের ছেলে তোতা।

জিজ্ঞাসাবাদে দু’জন জানায়, মোঃ নাসির উদ্দিন ওরফে রাসেল নিজেকে ঢাকা থেকে প্রকাশিত মাতৃজগত প্রতিকার সাংবাদিক, লিয়াকত হেসেন দৈনিক মানবাধিকার প্রতিদিনের সাংবাদিক দাবি করেন।

বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আতাউর রহমান জানান, মহনগঞ্জ বাজারের একটি বেকারীতে ক্যামেরা হাতে তিনজন ব্যক্তি বেকারীর লোকজনকে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করেন এবং তারা কাগজে লিখালিখি করেন।

এ সময় বেকারীর লোকজন ম্যাজিস্ট্রেট ভেবে তাদেরকে ১ হাজার টাকা দেয়। তাদের মধ্যে একজন বলেন গাড়ীতে স্যার আছে ১ হাজার টাকায় হবেনা। তখন বেকারীর মালিক আরো ১হাজার টাকা দেয় তাদের।

ঘটনার সময় বেকারীর সামনে অনেক লোকজন ভিড় করে।

কাকতালীয় ভাবে গাড়ি নিয়ে সেখান দিয়ে একজন ম্যাজিস্ট্রেট যাচ্ছিলেন। মানুষের ভিড় দেখে সেখানে তিনি গাড়ি থামিয়ে লোকজনকে জিজ্ঞাসা করেন কি হয়েছে ? এত মানুষের ভিড় কেন ? তখন স্থানীয়রা জানায় বেকারীতে ভ্রাম্যমান ম্যাজিস্ট্রেট এসেছে? ম্যাজিস্ট্রেট বলেন তাদের গাড়ী আটকাও । এ সময় স্থানীয়রা চাঁদাবাজদের একটি সিলভার কালারের মাইক্রোবাসটি আটকায়।

ম্যাজিস্ট্রেট তাদের প্রশ্ন করেন, আপনাদের পরিচয় কি ? তখন তারা কোন উত্তর না দিয়ে চুপ করে থাকে। এ সময় জনতা উত্তেজিত হয়ে তাদের মারমুখি হয়। কৌশলে ম্যাজিস্ট্রেট বাগমারা থানায় ফোস দেন।

খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন বাগমারা থানার ওসি ও সঙ্গীয় ফোর্স। ওসি আরো বলেন, তাদের উদ্ধার না করলে স্থানীয় উত্তেজিত জনতা তাদের পেটাতো এবং পরিস্থিতি খারাপ হতো।

ওসি আরো বলেন, কথিত ম্যাজিস্ট্রেট ও সাংবাদিকদের থানায় রেখে জিঞ্জাসাবাদ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

রাজশাহীতে বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০১৯ অনুষ্ঠিত

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল