«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

দু’বছরে ৫ লাখ রোহিঙ্গা ফেরত নিতে পারে মিয়ানমার

রবিবার, ০৯ জুন ২০১৯ | ৫:৪২ পূর্বাহ্ণ | 39 বার

দু’বছরে ৫ লাখ রোহিঙ্গা ফেরত নিতে পারে মিয়ানমার

বাংলাদেশ থেকে আগামী ২ বছরের মধ্যে ৫ লাখ রোহিঙ্গা ফেরত নিতে পারে মিয়ানমার। দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশগুলোর সংস্থা আসিয়ানের এক প্রতিবেদনে এ আভাস মিলেছে।

সংস্থাটির ইমার্জেন্সি রেসপন্স অ্যান্ড অ্যাসেসমেন্ট টিমের (আসিয়ান-ইএআরটি) করা প্রতিবেদনটি আগামী সপ্তাহে প্রকাশ হওয়ার কথা। প্রতিবেদনে রোহিঙ্গা ফেরত নেয়ার বিষয়ে মিয়ানমারের প্রতিশ্রুতি ও প্রচেষ্টার প্রশংসা করা হয়েছে।

বলা হচ্ছে, মিয়ানমার সহজ ও সুশৃঙ্খলভাবে রোহিঙ্গাদের ফেরতে কাজ করছে। এ কারণে নড়েচড়ে বসেছেন সমালোচকরা। অথচ ফেরত নিতে মিয়ানমারের অনীহার কারণেই বাংলাদেশে অন্তত ৭ লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা মানবেতর জীবন-যাপন করছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রাথমিকভাবে ৫ লাখ রোহিঙ্গা ফেরত নেয়ার বিষয়ে কাজ চলছে। জাতিসংঘ প্রতিবেদনের কপি আনুষ্ঠানিকভাবে পাওয়ার পর মন্তব্য করবে বলে জানিয়েছে।

২০১৭ সালের নভেম্বরে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে রোহিঙ্গা ফেরতের ব্যাপারে চুক্তি হয়েছিল। কিন্তু তা আলোর মুখ দেখেনি। রাখাইনে গণহারে হত্যা, ধর্ষণ ও ঘরবাড়িতে আগুন দেয় মিয়ানমার সেনারা। এসব প্রমাণিত হওয়ায় গণহত্যার অপরাধ হিসেবে মিয়ানমারের শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের বিচারের দাবিও জানিয়ে আসছে জাতিসংঘ। প্রতিবেদনে রাখাইনের নাগরিকদের ‘রোহিঙ্গা’ উল্লেখ না করে ‘মুসলিম’ সম্প্রদায় হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

বলা হয়েছে, রোহিঙ্গা ফেরতের এ প্রচেষ্টা ২ বছর বা তার বেশি লাগতে পারে। মানবাধিকার সংস্থাগুলো রোহিঙ্গা ফেরতের বিষয়ে মিয়ানমারের প্রচেষ্টাকে কৌশল হিসেবে উল্লেখ করে আসছে। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, রোহিঙ্গাদের বসবাসের নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত না করে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হবে তাদেরকে আরও বিপদের মুখে ঠেলে দেয়া। সংস্থাটির বক্তব্য, রাখাইনে এখনও চার লাখ রোহিঙ্গা বসবাস করছেন। তারা মূলত উন্মুক্ত কারাগারের মধ্যে বসবাস করছেন।

 

ও/আ

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ-

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল