«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

পাকিস্তান সীমান্তে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করছে ভারত

শনিবার, ০৮ জুন ২০১৯ | ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ | 86 বার

পাকিস্তান সীমান্তে ১৪ হাজার বাঙ্কার নির্মাণ করছে ভারত

কাশ্মীরে পাকিস্তান সীমান্তে ১৪ হাজার ৪০০টি কমিউনিটি বাঙ্কার তৈরি করছে ভারত। রাজ্যের রাজৌরি জেলার কালসিয়ান এলাকায় সীমান্তবর্তী স্থানীয় একটি স্কুলের জমিতে প্রথম বাঙ্কারটি তৈরি করা হয়েছে।

বুধবারই উদ্বোধন করা হয়েছে স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সুরক্ষার জন্য নির্মিত বাঙ্কারটি। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা ও বিমান হামলার ঘটনার পরই বর্ডার এরিয়া ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (বিএডিপি) প্রকল্পের অধীনে ওই কর্মসূচি হাতে নেয় ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। ৪১৫ কোটি ৭৩ লাখ টাকা ব্যয়ে এসব বাঙ্কার নির্মাণ করা হচ্ছে। খবর এনডিটিভির।

সেনাবাহিনীর নর্দার্ন কমান্ডের এক কর্মকর্তা বলেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যে ৭৫ শতাংশ বাঙ্কার তৈরির কাজ শেষ হয়ে যাবে। স্থানীয় অনেক বাসিন্দাই বাঙ্কার তৈরির জন্য তাদের জমি দিয়েছে।

ভারতের গণমাধ্যমে বলা হয়, পাকিস্তান প্রায়ই যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করায় সীমান্তের বাসিন্দাদের আশ্রয়ের জন্য তৈরি হচ্ছে কমিউনিটি বাঙ্কার। সীমান্তে পাহারারত নিরাপত্তা বাহিনী ও সীমান্তবর্তী মানুষের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে বাঙ্কার তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

কাশ্মীরের পুঞ্চ, রাজৌরি, খাটুয়া ও সাম্বা জেলায় স্বতন্ত্র ও কমিউনিটি বাঙ্কার তৈরি করা হবে। ভারতীয় কর্মকর্তারা বলছেন, উভয়পক্ষের গোলাগুলি বর্ষণের মধ্যে পড়ে যাতে জম্মু-কাশ্মীরের বেসামরিক নাগরিকদের প্রাণহানি না হয়, সেই লক্ষ্যেই এসব বাঙ্কার নির্মাণ করা হচ্ছে।

যুদ্ধ পরিস্থিতির সময় বাঙ্কারগুলোর প্রত্যেকটিতে যাতে ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ জন মানুষ থাকতে পারেন সেভাবেই এগুলো নির্মাণ করা হবে। ভারতের ও পাকিস্তানের মধ্যে ৩ হাজার ৩২৩ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে। এর মধ্যে ২২১ কিলোমিটার আন্তর্জাতিক সীমান্ত ও ৭৪০ কিলোমিটার নিয়ন্ত্রণরেখা (এলওসি) আছে।

এদিকে ইসরাইলের কাছ থেকে আরও ক্ষেপণাস্ত্র কিনছে ভারত। এ নিয়ে তেলআবিবের সঙ্গে ৩০০ কোটি টাকার চুক্তি করেছে ভারতীয় বিমান বাহিনী। বৃহস্পতিবার দুই দেশের পক্ষ থেকে এই চুক্তি সই করা হয়।

নতুন এসব ক্ষেপণাস্ত্রকে ‘বালাকোট বোমা’ বলে অভিহিত করা হচ্ছে। চলতি বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে এয়ারস্ট্রাইকের সময় এই বোমাই ব্যবহার করেছিল ভারত। চুক্তি অনুসারে, আগামী তিন মাসের মধ্যে এই স্পাইস বোমা ভারতীয় বায়ুসেনার হাতে তুলে দেবে ইসরাইল।

দুই দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মোট ১০০টি স্পাইস ২০০০ বোমার চুক্তি করা হয়েছে। ইসরাইলের প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী সংস্থা ‘রাফায়েল অ্যাডভান্স ডিফেন্স সিস্টেম’ বোমা তৈরির কাজটি পেয়েছে।

নতুন সরকার ক্ষমতায় আসার পর এটি প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে প্রথম চুক্তি। বোমাগুলো কেনা হচ্ছে জরুরি ভিত্তিতে। যে কোনোভাবেই এই বছরের মধ্যে এই কেনাবেচা সেরে ফেলতে চায় ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভয়াবহ নাশকতা চালায় পাকিস্তান মদদপুষ্ট জইশ জঙ্গিগোষ্ঠী। এর বদলা নিতেই ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে ঢুকে এয়ারস্ট্রাইক চালায় ভারতের বিমান বাহিনী।

খাইবার পাখতুনখোয়ার বালাকোটসহ মুজাফ্ফরাবাদ ও চাকোতির তিনটি জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবির নষ্ট করে দেয় ভারত। প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে এই এয়ারস্ট্রাইকের কথা স্বীকার করে পাকিস্তান।

 

ও/আ

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

মাষ্টারপাড়া আইডিয়াল স্কুল সন্ত্রাসীদের দখলে মাষ্টার মাইন্ড জুয়েল মাষ্টার

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল