«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

তরুণ উদ্যোক্তা ওমর আলী ও তার স্বপ্নের ‘পিকমি’

শুক্রবার, ৩১ মে ২০১৯ | ৬:৩৩ অপরাহ্ণ | 66 বার

তরুণ উদ্যোক্তা ওমর আলী ও তার স্বপ্নের ‘পিকমি’
ওমর আলী বাংলাদেশি অন-ডিমান্ড রাইড শেয়ারিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ‘পিকমি’র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।

ওমর আলী একজন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত

উদ্যোক্তা। তিনি বাংলাদেশি অন-ডিমান্ড রাইড শেয়ারিং

সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ‘পিকমি’র প্রতিষ্ঠাতা ও

প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।

বাংলাদেশে রাইড শেয়ারিং সেবায় কিছুটা নতুনত্ব ও

আধুনিকতার ছোঁয়া নিয়ে দেশি অ্যাপ ভিত্তিক এই

পরিবহণ সেবার প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম শুরু হয় ২০১৭

সালের নভেম্বর থেকে।

শুরু করাটা ছিল বেশ চ্যালেঞ্জিং। টিম গোছানো,

অ্যাপ ডেভেলপসহ নানা রকম প্রতিবন্ধকতার

মুখোমুখি হতে হয়।

২০১৭ সালের নভেম্বরে কার্যক্রম শুরু করলেও

পিকমির আনুষ্ঠানিক অফিসিয়াল অ্যাপ চালু হয় গত ১

সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালে।

শুরু হয়েছিল ছোট্ট পরিসরে, ধীরে ধীরে

এর পরিসর বৃদ্ধির পাশাপাশি স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে

বেশ এগিয়ে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি।

যখন রাইড শেয়ারিং-এ নিরাপত্তার বিষয়টি সর্ব মহলে

আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ঠিক তখন ওয়ান টাইম

পাসওয়ার্ড বা (ওটিপি) পদ্ধতি চালু করে যাত্রী ও

চালকের নিরাপত্তার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ

গুরুত্বারোপ দিয়েছে পিকমি।

ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড বা (ওটিপি) পদ্ধতি ছাড়া ইচ্ছা

করলেই যাত্রীকে ছাড়া রাইড স্টার্ট করতে

পারবে না চালক।

এক্ষেত্রে রাইড স্টার্ট করার পূর্বে যাত্রীর

কাছে থাকা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড নিয়ে চালক ওটিপি

কোড অপশনে সাবমিট করে স্টার্ট বাটনে ক্লিক

করলে রাইডটি চালু হবে এবং ভাড়া গণনা শুরু হবে।

এতে বাড়তি ভাড়ার বিড়ম্বনায় পড়তে হবে না

যাত্রীকে।

শুরুর দিকে বাইক সার্ভিস দিয়ে যাত্রা শুরু করে পিকমি।

এরপর গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ থেকে কার সার্ভিস

ও ২ মে ইন্টারসিটি সার্ভিস যুক্ত হয়েছে পিকমি

অ্যাপে।

ব্যবহারকারীরা ব্যবসায়িক কাজে অথবা বিভিন্ন

প্রয়োজনে নারায়ণগঞ্জ, সাভার ও গাজীপুরে

ঘুরে আসতে পারবে এই ইন্টারসিটি সার্ভিসের

মাধ্যমে।

তারুণ্যের স্বপ্ন ও প্রচেষ্টায় ওমর আলীর স্বপ্ন

ধীরে ধীরে বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে

যাচ্ছে। যানজটের এই শহরে গন্তব্যে

সময়মতো পৌঁছানো যখন কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে

উঠে, তখন পিকমির সেবায় কিছুটা হলেও স্বস্তির

নিশ্বাস ফেলছেন ব্যবহারকারীরা।

কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, জাতীয় জরুরি সেবা

৯৯৯ এর সাথে সিএসআর কার্যক্রমের অংশ হিসেবে

যৌথ প্রচারণা, বই পড়াকে উৎসাহ যোগাতে ভাষার

মাসে বই নিয়ে কার্যক্রম, স্বাধীনতা দিবসে ফ্রি

মেডিকেল ক্যাম্প কার্যক্রম, ট্রাফিক পশ্চিম বিভাগের

সাথে ফুটওভার ব্রীজ ব্যবহার ও জেব্রা ক্রসিং

ব্যবহারে সচেতনতামূলক কার্যক্রম, সড়ক নিরাপত্তায়

রাইডার ট্রেনিং ওয়ার্কশপসহ সর্বোপরি রাইড শেয়ারিং

সেবার মান বৃদ্ধিকল্পে কাজ করে যাচ্ছে ওমর

আলীর স্বপ্নের পিকমি।

বর্তমানে পিকমি বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে

এই শহরের মানুষের কাছে। ওমর আলীর

সৃজনশীল ভাবনা আর নিরলস পরিশ্রমে এগিয়ে

চলছে প্রতিষ্ঠানটি। তিনি মনে করেন সরকারের

পাশাপাশি অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের কাছ থেকে

আরো সহায়তা প্রয়োজন।

এছাড়াও ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিগত

বিনিয়োগকারীরা এগিয়ে আসলে রাইড শেয়ারিং খাত

অবকাঠামোগত ভাবে আরও শক্তিশালী হবে। তার

এই স্বপ্ন ডিজিটাল বাংলাদেশের পরিবহন সেক্টর

ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির

চাকাকে নিশ্চিতভাবে আরও গতিশীল করবে।

 

ও/আ

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

জাকির নায়েকের বসবাসের অনুমতি বাতিল করা হতে পারে: মাহাথির

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল