«» মূলমন্ত্রঃ : সত্যের পথে,জনগনের সেবায়,অপরাধ দমনে,শান্তিময় সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে" আমরা বাঙালি জাতীয় চেতনায় বিকশিত মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষে সত্য এবং ধর্মমতে বস্তুনিষ্ঠ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতায় সর্বদা নিবেদিত। «»

ফোর জি’র গতি নেই কোনো মোবাইল অপারেটরের

বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৬:১০ পূর্বাহ্ণ | 57 বার

বাংলাদেশে কোনো মোবাইল অপারেটরই

ফোর জির পূর্ণ সেবা দেয় না।

সোমবার বিটিআরসি মোবাইল ফোন

অপারেটরগুলোর ‘কোয়ালিটি অব সার্ভিস ড্রাইভ

টেস্টের’ প্রতিবেদন প্রকাশ করলে এ তথ্য

জানা যায়।

ঢাকা মহানগরে এই পরীক্ষা চালায় তারা।

এতে দেখা যায়, ফোর জিতে গ্রামীণ

ফোনের (জিপি) ডাউনলোড গতি পাঁচ দশমিক ৪৪

এমবিপিএস, রবির পাঁচ দশমিক ৯১ এমবিপিএস এবং

বাংলালিংকের পাঁচ দশমিক ১৮ এমবিপিএস।

কোয়ালিটি অব সার্ভিস (কিউওএস) নীতিমালা

অনুযায়ী, থ্রিজি প্রযুক্তির ইন্টারনেটে

ডাউনলোডের সর্বনিম্ন গতি দুই এমবিপিএস আর

ফোরজিতে ৭ এমবিপিএস হতে হবে।

মানসম্মত সেবার বেঞ্চমার্কে নেই কোনো

মোবাইল ফোন অপারেটর। পরীক্ষার

ফলাফলে দেখা যায়, ড্রাইভ টেস্টে সরকারি

অপারেটর টেলিটকের কোনো ফোরজি

গতির ফলাফল যাচাই করা হয়নি।

পরীক্ষায় দেখা যায় আপলোড গতি জিপির ২

দশমিক ৫৫, রবির ২ দশমিক ৫০ এবং বাংলালিংকের ২

দশমিক ৩৩ এমবিপিএস। যা বেঞ্চমার্ক অনুয়ায়ী

ঠিক আছে। বেঞ্চমার্কে এটি ১ এমবিপিএস

হতে হবে।

অবশ্য থ্রিজিতে গতির পরীক্ষায় টেলিটক ছাড়া

সবগুলো অপারেটরই বেঞ্চমার্ক ঠিক

রেখেছে। টেলিটকের ডাউনলোড গতি ১

দশমিক ৬৩ এমবিপিএস।

বাকি অপারেটরগুলোর থ্রিজির ডাউনলোড গতি ৩

এমবিপিএসের ওপরে।

বেঞ্চমার্ক অনুয়ায়ীতে থ্রিজির ডাউনলোড

গতি সর্বনিম্ন ২ এমবিপিএস থাকতে হবে।

কিউওএস নীতিমালা অনুযায়ী অপারেটরগুলোর

বিভিন্ন সেবার মান মূল্যায়ন করে র্যাঙ্কিং করার কথা।

র্যাঙ্কিংয়ের জন্য এই ড্রাইভ টেস্ট অন্যতম।

নীতিমালায় অপারেটরগুলোর সেবার মানের

ক্ষেত্রে বেঞ্চমার্কও ঠিক করে দেওয়া

হয়েছে।

সে অনুয়ায়ী ড্রাইভ টেস্টের ফলাফল তুলনা করা

হয়।ঘোষিত মানদণ্ড অনুসারে সেবা দেওয়া না

হলে সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে জরিমানা করতে

পারবে বিটিআরসি বলে নীতিমালায় বলা রয়েছে।

ফোর জি’র গতি নেই কোনো মোবাইল

অপারেটরের

বাংলাদেশে কোনো মোবাইল অপারেটরই

ফোর জির পূর্ণ সেবা দেয় না।

সোমবার বিটিআরসি মোবাইল ফোন

অপারেটরগুলোর ‘কোয়ালিটি অব সার্ভিস ড্রাইভ

টেস্টের’ প্রতিবেদন প্রকাশ করে। ঢাকা

মহানগরে এই পরীক্ষা চালায় তারা।

এতে দেখা যায়, ফোরজিতে গ্রামীণ

ফোনের (জিপি) ডাউনলোড গতি পাঁচ দশমিক ৪৪

এমবিপিএস, রবির পাঁচ দশমিক ৯১ এমবিপিএস এবং

বাংলালিংকের ৫ দশমিক ১৮ এমবিপিএস।

কোয়ালিটি অব সার্ভিস (কিউওএস) নীতিমালা

অনুযায়ী, থ্রিজি প্রযুক্তির ইন্টারনেটে

ডাউনলোডের সর্বনিম্ন গতি দুই এমবিপিএস আর

ফোরজিতে ৭ এমবিপিএস হতে হবে।

মানসম্মত সেবার বেঞ্চমার্কে নেই কোনো

মোবাইল ফোন অপারেটর। পরীক্ষার

ফলাফলে দেখা যায়, ড্রাইভ টেস্টে সরকারি

অপারেটর টেলিটকের কোনো ফোরজি

গতির ফলাফল যাচাই করা হয়নি।

পরীক্ষায় দেখা যায় আপলোড গতি জিপির ২

দশমিক ৫৫, রবির ২ দশমিক ৫০ এবং বাংলালিংকের ২

দশমিক ৩৩ এমবিপিএস। যা বেঞ্চমার্ক অনুয়ায়ী

ঠিক আছে। বেঞ্চমার্কে এটি ১ এমবিপিএস

হতে হবে।

অবশ্য থ্রিজিতে গতির পরীক্ষায় টেলিটক ছাড়া

সবগুলো অপারেটরই বেঞ্চমার্ক ঠিক

রেখেছে। টেলিটকের ডাউনলোড গতি ১

দশমিক ৬৩ এমবিপিএস।

বাকি অপারেটরগুলোর থ্রিজির ডাউনলোড গতি ৩

এমবিপিএসের ওপরে।

বেঞ্চমার্ক অনুয়ায়ীতে থ্রিজির ডাউনলোড

গতি সর্বনিম্ন ২ এমবিপিএস থাকতে হবে।

কিউওএস নীতিমালা অনুযায়ী অপারেটরগুলোর

বিভিন্ন সেবার মান মূল্যায়ন করে র্যাঙ্কিং করার কথা।

র্যাঙ্কিংয়ের জন্য এই ড্রাইভ টেস্ট অন্যতম।

নীতিমালায় অপারেটরগুলোর সেবার মানের

ক্ষেত্রে বেঞ্চমার্কও ঠিক করে দেওয়া

হয়েছে।

সে অনুয়ায়ী ড্রাইভ টেস্টের ফলাফল তুলনা করা

হয়। ঘোষিত মানদণ্ড অনুসারে সেবা দেওয়া না

হলে সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে জরিমানা করতে

পারবে বিটিআরসি বলে নীতিমালায় বলা রয়েছে।

 

ও/আ

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ-

Development by: bdhostweb.com

চুরি করে নিউজ না করাই ভাল